Sunday, August 14, 2022

আসলে যা দিয়ে বানানো হতো ‘কাঁচা আমের জিলাপি’!

জিলাপি নাকি কাঁচা আমের তৈরি! সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি আর পোস্ট ছড়িয়ে পড়তেই নতুন কিছুর প্রত্যাশায় মানুষের ঢল দোকানে। স্বল্প সময়েই রাজশাহীতে রসেগোল্লা নামের মিষ্টির একটি নতুন দোকানের এই কৌশলী চটকদার প্রচারণা ছড়িয়ে যায় সারাদেশে।

কিন্তু বাস্তবতা ভিন্ন। নিম্নমানের রঙ আর কৃত্রিম গন্ধ এই জিলাপির অন্যতম উপকরণ, যা ধরা পড়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে। খাবারে ক্ষতিকর রং মেশানো আর প্রচারণায় প্রতারণার আশ্রয় নেয়ায় পৃথকভাবে জরিমানা করা হয় প্রতিষ্ঠানটিকে।

কাঁচা আমের নয়ন কাড়া সবুজ রঙা জিলাপির হৈচৈ ফেলা প্রচারণা। এতে আকৃষ্ট হয়ে রমজানে জিলাপি কিনতে হুমড়ি খেয়ে পড়ে রাজশাহীর মানুষ। দিন কয়েক যেতে না যেতেই সেই জিলাপির রেসিপি রহস্য খোলাসা হয় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে।

৫ কেজি কালাই গুঁড়ার খামিরের সঙ্গে সামান্য আমের গুটির পেস্ট। এরপর মূল কাজটা করতো তাতে মেশানো সবুজ রঙ।রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ উপ-পুলিশ কমিশনার আরেফিন জুয়েল বলেন, জিলাপির কাঁচামাল পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে।

এর ভেতরে সে অর্থে আম নাই। নামে কাঁচা আমের জিলাপি বলা হলেও এর মূল উপকরণ কালাই গুঁড়া ও রং।সেই খাবারের রঙও উৎপাদন ও মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখবিহীন। নেই উৎপাদনের ব্যাচ নম্বরও।

রাজশাহী বিএসটিআই সহকারী পরিচালক দেবব্রত বিশ্বাস বলছেন, মানুষের মধ্যে বিজ্ঞাপন দিয়ে ধারণা তৈরি করা হয়েছে যে, জিলাপিটা হয়তে আম দিয়ে তৈরি। তবে এর মূল উপকরণ রং আর ফ্লেভার। প্রচারণায় তারা এসব উল্লেখ করেনি।

শুক্রবার রাতে যাচ্ছেতাই ফুড কালার মেশানোর অপরাধে জিলাপি বিক্রি বন্ধের পাশাপাশি রসগোল্লা নামের প্রতিষ্ঠানটিকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত।

এর আগে বিকেলে পুলিশ, বিএসটিআই ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের সমন্বিত অভিযান চালিয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে হৈচৈ ফেলা বিজ্ঞাপন করায় ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করে।

রাজশাহী জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর সহকারী পরিচালক হাসান-আল-মারুফ বলছেন, এটি স্পষ্টতই ভোক্তা অধিকার আইনের লঙ্ঘন। উদ্যোক্তা বিবেচনায় প্রাথমিকভাবে তাদের ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে বলেও জানালেন তিনি।

বিষয়টিকে নিজেদের ভুল হিসেবে উল্লেখ করে প্রতিষ্ঠানটির মালিকের দাবি, সেগুলো আগামীতে শুধরে নেবেন তারা। মালিক আরাফাত রুবেল বলছেন, আমের পরিমাণ কম হওয়ায় তাদের কাছে দৃষ্টিকটু লেগেছে।

তারা আমাদের আমের পরিমাণ বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন।সম্প্রতি যাত্রা শুরু করা রাজশাহী নগরী রসগোল্লা নামের এই প্রতিষ্ঠান শুরু থেকে দাবি করে পাকা আমের স্বাদের মিষ্টি, কাঁচা মরিচ ও

খেজুর গুড় দিয়ে তৈরি রসগোল্লা বিক্রি করেন তারা। অল্পদিনেই চালু হয় দুটি শাখা। রমজানের শুরু থেকে সবুজ রঙা জিলাপি বাজারে নামিয়ে দাবি করা হয়, এগুলো কাঁচা আমের।

Latest news

00

Related news