Monday, August 8, 2022

পরীক্ষাই দেন নি, এএসপি পদে সুপারিশপ্রাপ্ত দাবি করা কনস্টেবল

৪০তম বিসিএসে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) পদে সুপারিশপ্রাপ্ত হওয়ার দাবি করে আলোচনায় এসেছিলেন কনস্টেবল আবদুল হাকিম। কয়েকটি গণমাধ্যমে এ খবর প্রকাশিত হয়। এরপর ফেসবুকে প্রশংসায় ভেসেছিলেন তিনি। তবে ওই ঘটনার পর থেকে আবদুল হাকিমকে খুঁজেও তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছে না পুলিশ সদর দপ্তর।

সদর দপ্তরের সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, আবদুল হাকিম আসলেই এএসপি হিসেবে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন কি না, সে বিষয়ে কোনো তথ্য তাঁদের কাছে নেই। পুলিশের কোন ইউনিটে তিনি কর্মরত, তা–ও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

আবদুল হাকিমের গ্রামের বাড়ি নরসিংদী জেলার রায়পুরা উপজেলায়। তাঁর বিসিএস পাসের খবর নিয়ে যখন আলোচনা চলছিল, সেই সময় ১ এপ্রিল আবদুল হাকিমের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন প্রথম আলোর নরসিংদী প্রতিনিধি প্রণব কুমার দেবনাথ।

তখন আবদুল হাকিম দাবি করেন, গত ৩০ মার্চ প্রকাশিত ৪০তম বিসিএসের ফলে পুলিশ ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন তিনি। তবে বিভিন্ন বিষয়ে আবদুল হাকিমের কথাবার্তা অসংলগ্ন মনে হয় প্রণব কুমার দেবনাথের। পরে তিনি এ বিষয়ে সংবাদ লেখা থেকে বিরত থাকেন। তখন আবদুল হাকিম জানিয়েছিলেন, তিনি ডিএমপির পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্ট (পিওএম) বিভাগে কর্মরত।

আবদুল হাকিমের বিষয়ে জানতে চাইলে পুলিশ সদর দপ্তরের একজন কর্মকর্তা আজ শুক্রবার প্রথম আলোকে বলেন, কনস্টেবল আবদুল হাকিম বিসিএসে এএসপি হিসেবে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন, এমন তথ্য বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়ার পর তাঁকে খোঁজা হচ্ছে।

তবে এখন পর্যন্ত তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তিনি সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন কি না, সেটি এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। আবদুল হাকিম ঢাকা মহানগর পুলিশে (ডিএমপি) কর্মরত বলে তথ্য থাকার কথা জানান ওই কর্মকর্তা। তবে ডিএমপির গণমাধ্যম ও জনসংযোগ বিভাগের উপকমিশনার ফারুক হোসেন দাবি করেন, আবদুল হাকিম ডিএমপিতে কর্মরত নন। বছরখানেক আগে তিনি এখানে ছিলেন।

পরে তাঁকে ঢাকা রেঞ্জে বদলি করা হয়। এখন তিনি কোথায় আছেন, সেটি জানা নেই। এ বিষয়ে ঢাকা রেঞ্জের অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক জিহাদুল কবির প্রথম আলোকে বলেন, প্রায় ৯ মাস আগে কনস্টেবল আবদুল হাকিমের পদায়ন ঢাকা রেঞ্জে হয়েছিল। তবে তিনি ঢাকা রেঞ্জে যোগ দেননি। পরে তিনি কোথায় যোগ দিয়েছেন, এ বিষয়ে জানা নেই।

 

Latest news

00

Related news