Tuesday, August 9, 2022

পেঁপে কাদের জন্য ক্ষ’তিকর, জানেন?

সারা বছরই পাওয়া যায় এমন খাবারগুলোর মধ্যে পেঁপে অন্যতম। এটি কাঁচা অবস্থায় সবজি এবং পাকা অবস্থায় ফল হিসেবে খাওয়া যায়। এতে রয়েছে কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, ফাইবার বা আঁশ, পটাশিয়াম, ভিটামিন এ, ভিটামিন সি, ভিটামিন বি৯ এবং প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট।

তা ছাড়া অল্প পরিমাণে রয়েছে- ম্যাগনেশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন ই, ভিটামিন কে এবং কয়েক ধরনের ভিটামিন বি। এগুলো শরীরকে সুস্থ রাখতে ও শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ দূর করার পাশাপাশি জ্বর নিরাময়ে,

পেটের সমস্যা দূর করতে, গ্যাস্ট্রিক এবং বদহজমেও অনেক উপকারী।পেঁপে খাওয়া শরীরের পক্ষে খুবই ভালো। চিকিৎসকরা রোজকার ডায়েটে পেঁপে রাখতেও বলেন।

বিশেষ করে যারা ওজন কমাতে চান, কিংবা লিভার ভালো রাখতে চান তাদের তো পেঁপে খেতেই হবে। কিন্তু জানেন, পেঁপে খাওয়া ভালো হলেও, তা সবার জন্য ভালো নয়। চিকিৎসকদের কথায়, পেঁপে বেশ কিছু রোগকে বাড়িয়ে দিতে পারে।

১) গর্ভবতী মহিলাদের পেঁপে খাওয়া একেবারেই উচিত নয়। তা পাকা হোক বা কাঁচা। এতে রয়েছে ল্যাটেক্স এবং প্যাপেইন, যা জরায়ু সংকোচনের কারণ হতে পারে। তাই অন্তঃসত্ত্বা হলে পেঁপে এড়িয়ে চলাই উচিত।

২) যাদের অনিয়মিত হৃদস্পন্দনের সমস্যা রয়েছে, তাদের একেবারেই পেঁপে খাওয়া উচিত নয়। কারণ বেশি পরিমাণ পেঁপে খেলে হৃদরোগ হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

৩) কিডনিতে পাথর থাকলে পেঁপে এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। কারণ এতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি থাকে। এই ভিটামিন অত্যধিক গ্রহণের ফলে এতে বিদ্যমান ক্যালসিয়াম অক্সালেট কিডনিতে পাথর তৈরি করতে পারে।

৪) বিশেষজ্ঞদের কথায়, ব্লাডসুগার নিয়ন্ত্রণে পেঁপে দারুণ কাজ করে। তবে যাদের হাইপোগ্লাইসোমিয়ার সমস্যা রয়েছে অর্থাৎ রক্তে শর্করার পরিমাণ কম তারা পেঁপে থেকে দূরেই থাকুন। কারণ এর মধ্যে থাকে অ্যান্টি-হাইপোগ্লাইসেমিক বা গ্লুকোজ কমানোর উপাদান।

৫) চিকিৎসকদের মতে, যেকোনো ফল খাওয়াই শরীরের পক্ষে ভালো। তবে প্রত্যেকটি ফলেরই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। তাই একটু বুঝে শুনে ফল খাওয়া উচিত। প্রয়োজনে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ নেওয়া উচিত।

Latest news

00

Related news